সাতক্ষীরার কলারোয়ায় একই পরিবারের ৪জনকে গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যা সাতক্ষীরার কলারোয়ায় একই পরিবারের ৪জনকে গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যা – দখিন দর্পণ
Image
Sorry, no posts Have .......

মঙ্গলবার  •  ১১ কার্তিক ১৪২৮ • ২৬ অক্টোবর ২০২১

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় একই পরিবারের ৪জনকে গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিতঃ ১৫ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৪:০৫ অপরাহ্ন । পঠিত হয়েছে ১৭৯ বার।

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় একই পরিবারের ৪জনকে গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যা

দর্পণ ডেস্ক : কলারোয়ায় একই পরিবারের ৪জনকে গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নৃশংতার ছোবল থেকে প্রাণে বাঁচলো ৬ মাসের শিশু মারিয়া। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়নের খলিশা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। বাড়িটি হেলাতলি ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের পার্শ্ববর্তী। ঘরের মধ্য থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। একটা লাশের পা বাঁধা অবস্থায় দেখা যায়।
নিহতরা হলেন-হেলাতলা খলসি গ্রামের শাহাজান আলীর ছেলে শাহিনুর রহমান (৪০), তার স্ত্রী সাবিনা খাতুন (৩৫), ছেলে সিয়াম হোসেন মাহি (১০) ও মেয়ে তাসনিম (৮)। এ ঘটনায় শাহিনুরের ছয় মাস বয়সী অপর শিশু কন্যা সন্তান মারিয়া অক্ষত আছে। নিহত শাহিনুর পোনা মাছ ব্যবসায়ী ছিলেন। পুকুরে মাছের চাষ করতেন তিনি।
পুলিশের ধারণা, গতরাতে চিলেকোঠা দিয়ে (ছাদের ঘর) দিয়ে দুর্বৃত্তরা ঘরে ঢুকে এই চারজনকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। এ ঘটনায় তাদের আত্মীয়স্বজন, প্রতিবেশি ও সাধারণ মানুষের আহাজারিতে বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। চারটি তরতাজা মানব সন্তানের জবাই করা লাশ দেখে তারা এখন হতভম্ব। হত্যার আগে অথবা পরে তারা পরিবার প্রধান শাহিনুরের হাত পায়ের রগ কেটে বেঁধে রেখে যায়। খবর পেয়ে সকালেই পুলিশের খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি নাহিদ, সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান (পিপিএম) বার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর্জা সালাহউদ্দিন, পিবিআই, র‌্যাব, ডিবি, সিআইডিসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। দুপুরে সাতক্ষীরা
জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল, কলারোয়ার ইউএনও মৌসুমী জেরিন কান্তা, এসিল্যান্ড আক্তার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। বিকেলে সেখানে ছুটে যান সাতক্ষীরা-১ আসনের সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্ল¬াহ-এমপি। তিনি শিশু মারিয়ার খোঁজখবর নেন।
ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম (বার) বলেন, ‘হত্যা করা হয়েছে কুপিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে। একজন পুরুষ, একজন মহিলা, একটা ছেলে বাচ্চা এবং এক মেয়ে শিশুকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। আমরা এখানে এসেছি, প্রাথমিকভাবে এটাকে আমরা প্রিজার্ভ করেছি এবং কিভাবে তাদেরকে হত্যা করা হয়েছে, যে ধারালো অস্ত্রের মাধ্যমে তাদেরকে হত্যা করা হয়েছে সেগুলো শনাক্ত করেছি। পাশাপাশি সম্ভাব্য কারা এ ধরনের ঘটনা ঘটাতে পারে অথবা কি কারণে সংঘটিত হতে পারে সেগুলো আমরা পর্যবেক্ষণ করছি এবং সেটা তদন্ত সাপেক্ষে আমরা পরবর্তীতে জানাবো। তবে যে বা যারা এই ঘটনার সাথে সংশ্লি¬ষ্ট থাকুক না কেন তাদেরকে অনুসন্ধানের মাধ্যমে খুঁজে বের করা হবে এবং ঘটনা সঠিকভাবে তদন্ত করা হবে।
এক প্রশ্নের জবাবে এসপি বলেন, ‘সম্ভাব্য যতগুলো বিরোধ থাকতে পারে আমরা সবগুলো পর্যবেক্ষণ করবো। সবগুলোকে আমরা গুরুত্ব দিয়ে দেখবো এবং সেটি কি কারণে সংঘটিত হয়েছে সেটা অবশ্যই তদন্তের মাধ্যমে বের করা হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘এখনো পর্যন্ত কাউকে এভাবে আমরা জিজ্ঞাসাবাদ করিনি। আমরা আগে বিষয়গুলো ভালভাবে দেখছি। দেখার পরে যদি কারো নাম আসে তখন তাদেরকে আমরা জিজ্ঞাসাবাদ করব।’
সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার আরও বলেন, এই দু:খজনক ঘটনার তদন্তে নেমেছি আমরা। হত্যাকরীদের অবিলম্বে খুঁজে বের করে সর্বোচ্চ শাস্তি দেওয়া হবে। ঘাতক যেই হোক তারা রক্ষা পাবে না।
কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারান চন্দ্র পাল বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ‘হত্যাকান্ডের কারণ এখনো জানা যায়নি। লাশ ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা মর্গে পাঠানো হয়েছে।
পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, নিহত শাহিনুরেরা তিন ভাই ও এক বোন, এক ভাই আশরাফুল মালায়েশিয়া থাকেন। ঘটনার রাতে নিহত শাহিনুর রহমানের ছোট ভাই রায়হানুল ইসলাম বাড়ির অন্য ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন।
রায়হানুল ইসলাম জানান, ‘বাড়িতে মা ও বড় ভাইয়ের পরিবারের ৪জনসহ তারা ছয়জন থাকতেন। মা গতকাল আত্মীয়ের বাড়িতে ছিলেন তুলসীডাংগা গ্রামে। তিনি (রায়হানুল) ছিলেন পাশের ঘরে। ভোরে পাশের ঘর থেকে তিনি বাচ্চাদের গোঙানির শব্দ শুনতে পান। তাৎক্ষণিক এগিয়ে গিয়ে দেখেন ঘরের বাইরে থেকে আটকানো। পরে গেটের তালা ভেঙ্গে ঘরের দরজা খুলে দেখতে পায় ভাই ও ভাবির নিথর দেহ পড়ে আছে। অপর ঘরের দরজা খুলে দেখতে পায় ভাইপো সিয়াম ও ভাইজি তাজনিমের মৃতদেহ পড়ে আছে। আর ওই ৬ মাসের শিশুটি অক্ষত অবস্থায় দোলনায় শুয়ে কাঁদছে। তাদের মধ্যে ভাই শাহিনুরের পা রশি দিয়ে বাঁধা এবং তার পা ও হাতের রগ কাটা। পরে তিনি চিৎকার দিয়ে উঠলে পাশ্ববর্তী লোকজন ছুটে আসে।
তিনি আরও জানান, তাদের সাথে জমি জায়গা নিয়ে পাশের কিছু লোকের বিরোধ ছিল। কিন্তু কারা এ ঘটনা ঘটালো তা বুঝতে পারছি না।
স্থানীয়রা জানান, ভোরে তারা ওই বাড়ির চিৎকার চেচামেচি শুনে ছুটে যান, পরে দরজা খুলে দেখতে পান সাবিনা খাতুন, তার দুই শিশু সন্তান তাসমিন ও তাসিম এক ঘরে ও আরেক ঘরে শাহিনুনের জবাই করা লাশ। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছায়। ভাই রায়হানুল ইসলাম আরও জানান, তার বড়ভাই শাহিনুর ইসলাম নিজস্ব ৭-৮ বিঘা জমিতে পাঙাস মাছ চাষ করতেন। গত ২২ বছর ধরে তাদের পারিবারিক জমি নিয়ে নিকট প্রতিবেশী ওয়াজেদ কারিগরের ছেলে আকবরের সাথে মামলা চলছিল। এই মামলা ও পারিবারিক বিরোধের জের ধরে এই হত্যাকান্ড ঘটে থাকতে পারে বলে তার ধারণা।
নিহত শাহিনুরের খালাতো ভাই হাসানুর রহমান জানান, তার ভাইয়ের সাথে কারোও কোন শত্রুতা ছিল না। কেবলমাত্র জমিজমা নিয়ে আকবরের সাথে ২২ বছর মামলা চলছে। তিনিও এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের ফাঁসি চান।
পরিবারের স্বজন ও প্রতিবেশিরা জানান, কলারোয়া উপজেলার দামোদরকাটী গ্রামের নূর আলীর ছেলে জনৈক আকবর হোসেনের কাছ থেকে ৩৪ শতক জমি ক্রয় করেন প্রতিবেশি ওয়াজেদ আলির ছেলে আকবর আলি। এর মধ্যে কিছু জমি নিয়ে আকবরের সাথে শাহিনুরের মামলা চলছিল। এই বিরোধ ছাড়া শাহিনুর পরিবারের সাথে কারো কোনো দ্বন্দ্ব ছিল না।
নিহত শাহিনুরের একমাত্র বোন আছিয়া খাতুন বুক চাপড়ে আহাজারি করছেন। তিনি বলছেন, আমার মা ও আরেকটা ভাই এখানে থাকলে তাদেরকেও খুন করতো সন্ত্রাসীরা।
স্থানীয় হেলাতলা ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন এই হত্যাকান্ডের বিচার দাবি করে বলেন, ‘পরিবারটি ছিল অত্যন্ত নিরীহ। তারা কোন দল করতো না। কারো সাথে তাদের বিরোধও ছিল না।’
কলারোয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মফিজুল ঘটনাস্থল থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ‘নিজেদের ঘরের মধ্যে গৃহপ্রধান শাহিনুর রহমানসহ চারজনকে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে। এদের মধ্যে শাহিনুরের পা বাঁধা ছিল এবং তাদের চিলে কোঠার দরজা খোলা ছিল। ধারণা করা হচ্ছে ছাদের চিলে কোঠার দরজা দিয়ে হত্যাকারীরা ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে। ঘটনার রহস্য উন্মোচনে থানা পুলিশ কাজ করেছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ

কলারোয়ায় মুজিব শতবর্ষের ঘর দেওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় শিশুসহ আহত-৩

কলারোয়ায় মুজিব শতবর্ষের ঘর দেওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায়...

প্রকাশিতঃ ৭ জানুয়ারী ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১০:০৫ অপরাহ্ন
সাতক্ষীরায় সবজির বাম্পার ফলন: দামে স্বপ্নভঙ্গ চাষির

সাতক্ষীরায় সবজির বাম্পার ফলন: দামে স্বপ্নভঙ্গ চাষির

প্রকাশিতঃ ৭ জানুয়ারী ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ন

কেরালকাতা চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে স.ম মোরশেদ আলী বিজয়ী

প্রকাশিতঃ ২০ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার, ১০:১৫ অপরাহ্ন

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় একই পরিবারের ৪জনকে গলা কেটে ও কুপিয়ে...

প্রকাশিতঃ ১৫ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৪:০৫ অপরাহ্ন

কেরালকাতা উপ-নির্বাচনে দৈনিক দখিনা দর্পণএকান্ত সাক্ষাৎকারে- স ম মোরশেদ...

প্রকাশিতঃ ১৪ অক্টোবর ২০২০, বুধবার, ৪:০৩ অপরাহ্ন