দখিনা দর্পণ সেচ পাম্পের মাধ্যমে গদাইবিলের জলাবদ্ধতা নিরসনে উদ্যোগ – দখিনা দর্পণ
Image

শুক্রবার  •  ৭ বৈশাখ ১৪২৮ • ২১ জানুয়ারী ২০২২

Add 1

সেচ পাম্পের মাধ্যমে গদাইবিলের জলাবদ্ধতা নিরসনে উদ্যোগ

প্রকাশিতঃ ১৬ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:০৩ পূর্বাহ্ন । পঠিত হয়েছে ৯৫ বার।

সেচ পাম্পের মাধ্যমে গদাইবিলের জলাবদ্ধতা নিরসনে উদ্যোগ

সাতক্ষীরা পৌরসভার স্থায়ী জলাবদ্ধতা দূরীকরণে মাছখোলা এলাকার গদাইবিলে সেচ পাম্পের মাধ্যমে পানি নিস্কাশন কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) দুপুর ১টায় গদাইবিল বেড়াডাঙ্গা ¯øুইস গেট সংলগ্ন সাতক্ষীরা পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কায়ছারুজ্জামান হিমেলের নেতৃত্বে ও গদাইবিল সুরক্ষা কমিটির সার্বিক সহযোগিতায় ১০টি সেচ পাম্প বসিয়ে পানি অপসারণের উদ্বোধন করেন সাতক্ষীরা পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতি।

সাতক্ষীরা পৌরসভার ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ডসহ মাছখোলা গদাইবিল এলাকার প্রায় ১ হাজার একর কৃষিজমি স্থায়ী জলাবদ্ধতায় নিমজ্জিত। সারা বছরই এ এলাকার মানুষের স্থায়ী জলাবদ্ধতা ও নানাবিধ দুর্ভোগ পোহাতে হয়। অতীতে এ এলাকার মানুষ কৃষি জমিতে ফসল ফলাতে পারতো। বেতনা ও মরিচ্চাপ নদীর জমি অবৈধ দখলদারী, নেটপাটা এবং অপরিকল্পিত মৎস্য ঘেরের কারণে স্থায়ী জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। এজন্য কৃষক ফসল ফলাতে পারছে না। এছাড়া বর্ষা মৌসুম এলে এলাকার মানুষের দুর্বিসহ জীবন যাপন করতে হয়। প্রাথমিকভাবে এ দুর্ভোগ থেকে পরিত্রাণ পেতে সেচ পাম্পের মাধ্যমে পানি অপসারণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

পানি অপসারণের উদ্বোধনকালে পৌর মেয়র বলেন, সাতক্ষীরার প্রধান সমস্যা জলাবদ্ধতা। এ জলাবদ্ধতায় বিশেষ করে আমাদের ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ড প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে পানির তলায় থাকে। তার একটি অংশ যে আমরা যে এলাকায় দাঁড়িয়ে আছি। এই গদাইবিল মাছখোলা অঞ্চলের মানুষ পানিবন্দি থাকে। সামান্য বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। আমরা জলাবদ্ধতা দুরীকরণের জন্য সরকারের সহযোগিতায় এবং ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হিমেলের নেতৃত্বে গদাইবিল সুরক্ষা কমিটি ও ঘের মালিক এবং এলাকাবাসীর সম্মিলিত উদ্যোগে আজকে বøু-গোল্ড’র পাম্প হাউজসহ এলাকাবাসীর অর্থায়ণে ও সকলের সহযোগিতায় ১০টি সেচ পাম্প স্থাপন করা হয়েছে। আশাকরি এলাকাবাসী অচিরেই পানি মুক্ত হবে। ইতোমধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ড ডিভিশন-২ এর সাথে আমাদের কথা হয়েছে। তারা বেতনা ও মরিচ্চাপ নদীর টেন্ডার পক্রিয়া শেষ করেছে। আগামী ফেব্রæয়ারির শেষে অথবা মার্চের প্রথম নাগাদ খাল খনন কাজ পক্রিয়া শুরু হবে। এই খাল পুনরায় খনন করা হলে এবং ১০টি মেশিন চালু থাকলে এলাকায় জলাবদ্ধতা থাকবে না। এছাড়া এলাকার কৃষকরা এই খাল খনন পক্রিয়া সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হলে মানুষ ২-৩ বছর এর সুফল পাবে। তখন কৃষকরা তাদের জমিতে ধান উৎপাদন করতে পারবে এবং ঘের মালিকদের পরিকল্পিতভাবে মৎস্য চাষ করতে হবে। আমরা স্থানীয় প্রশাসনসহ আইনশৃঙ্খলা সভায় সিদ্ধান্ত নিয়েছি প্রত্যেক ঘের মালিক স্ব স্ব উদ্যোগে ঘেরের পাশে ড্রেন করতে হবে এবং বর্ষা মৌসুমে নেট পাটা দিয়ে যাতে জলাবদ্ধতা না হয় সে ব্যাপারে ঘের মালিকদের আহবান জানান।
এসময় গদাই বিল সুরক্ষা কমিটির সভাপতি ও জেলা কৃষক লীগের সভাপতি মঞ্জুর হোসেন বলেন, মাছখোলার ১হাজার একর এই গদাই বিলের এরিয়া। এছাড়া শ্যাল্যে-মাছখোলা, গোপিনাথপুর-তালতলা, কাটিয়া এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। আমরা যদি এটা পানি নিস্কাসন করতে পারি তাহলে বোরো চাষ যেমন সম্ভব আগামীতে আমন চাষও সম্ভব। তবে আমাদের জলাবদ্ধতার স্থায়ী সমাধান করতে হবে। জলাবদ্ধতার ফলে মানুষ অনেক কষ্ট পায়। এব্যাপারে জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা আশ্বাস প্রদান করেছেন। আর একটি বিষয় হলো কৃষি সেচ প্রকল্পে রেট ৪.১৭ টাকা পার ইউনিট, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি আমাদের কাছ থেকে নিচ্ছে বাণিজ্যিক হারে ৭ টাকা ইউনিট। কৃষি সেচ প্রকল্পের রেট ৪.১৭ টাকা পার ইউনিট নিলে কৃষকরা উপকৃত হবে।
এসময় গদাই বিল সুরক্ষা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছোলাইমান আহমেদ বলেন, জলাবদ্ধতার কারণে আমাদের এলাকায় ধান চাষ হচ্ছে না। আমাদের দাবী বেতনা-মরিচ্চাপ নদী কাটানো হোক। আমাদের প্রধান ফসল হলো ধান। আমরা ধান চাষ করতে চাই। জলাবদ্ধতা দূরীকরণে আমরা সরকারের সহযোগিতা চাই। তাহলে সুষ্ঠুভাবে আমরা ৩টি ফসল করতে পারবো।
এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আসাদুজ্জামান সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেছেন। গদাই বিলে সেচ পাম্পের মাধ্যমে পানি অপসারণের উদ্বোধনকালে আরো উপস্থিত ছিলেন লাবসা ইউপি সদস্য মনিরুল ইসলাম, শেখ শাখাওয়াতুল করিম পিটুল, রাজিবুল্লাহ রাজু, রোকনুজ্জজামান সুমন, আব্দুল আহাদ, মিজানুর রহমান, রেজাউল কাগজিসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

এ জাতীয় আরো সংবাদ

সাতক্ষীরায় ঈগল পরিবহনের পিছনে পিষ্ট হয়ে হেলপারের মৃত্যু

প্রকাশিতঃ ২০ জানুয়ারী ২০২২, বৃহস্পতিবার, ১১:২২ অপরাহ্ন

সড়কে স্পিড ব্রেকার না থাকায় ঝুঁকিতে শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিতঃ ১৯ জানুয়ারী ২০২২, বুধবার, ১১:১৩ অপরাহ্ন

ইটভাটার খাদ্য হওয়ায় বিলুপ্তির পথে খেজুর গাছ

প্রকাশিতঃ ১৭ জানুয়ারী ২০২২, সোমবার, ১১:৩৩ অপরাহ্ন

উপকূলীয় কৃষি জমিতে লবণাক্ততা বৃদ্ধি ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব...

প্রকাশিতঃ ১৬ জানুয়ারী ২০২২, রবিবার, ১১:৫৫ অপরাহ্ন

শতকের ঘর পার করতে পারেনি ৮ চেয়ারম্যান প্রার্থী: আশাশুনির...

প্রকাশিতঃ ১১ জানুয়ারী ২০২২, মঙ্গলবার, ১১:১৯ অপরাহ্ন

নর্দান ইউনিভার্সিটির চেয়ারম্যান ইউসুফ আবদুল্লাহ গ্রেপ্তার

প্রকাশিতঃ ১০ জানুয়ারী ২০২২, সোমবার, ১০:৪৬ অপরাহ্ন

ভোমরা সিএন্ডএফ’র নির্বাচন ৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্থগীত

প্রকাশিতঃ ৯ জানুয়ারী ২০২২, রবিবার, ১১:৩২ অপরাহ্ন